নিজের আইকন সিএসএস বানানোর সহজ তরিকা

আমরা যারা ওয়েবে কাজ করি বিশেষ করে ডিজাইনের কাজ যারা করি তারা বেশিরভাগই ফ্রি আইকন ব্যবহার করে থাকি। যা একটা CSS ফাইল ডাউনলোড করে সংযোগ করে দিলেই কাজ শেষ। তবে অনেক ডিজাইনেই কাস্টম আইকন ব্যবহার দিন দিন বেড়ে যাচ্ছে। সাধারনত UI/UX ডিজাইনার png, svg ফাইল বানিয়ে দিচ্ছে যা ব্যবহার করতে হচ্ছে ওয়েবে। সেটা থেকে একটা

কেন শিখবো অ্যালগরিদম?

কেন শিখবো অ্যালগরিদম? প্রথমেই বলে নিই আপনি পরিকল্পনা ছাড়া কয়দিন কয়টা কাজ ঠিকমতো করতে পেরেছেন? হয়তো দুই একটা কাজ মনে পরবে। (অবশ্যই প্রাকৃতিক কার্য ছাড়া 😛 ) যাইহোক, আমাদের কাজ করার জন্য নির্দিষ্ট পরিকল্পনা থাকে তাই না? এবার ভাবুন একটা বিল্ডিং তৈরির আগে কি নকশা করার দরকার আছে? উত্তর হ্যাঁ হলে পরের লেখাগুলো মনোযোগ দিয়ে পড়ুন।

সহজ তরিকায় কম্পিউটার ভিশন (Object Detection)

লেখার শুরুতেই ধন্যবাদ জ্ঞাপন করছি  Andrew Ng  সাহেবের প্রতি। কম্পিউটার ভিশনের প্রাথমিক ধারনাগুলো তার কোর্স থেকেই পাওয়া। এর মধ্যে ResNet এবং YOLO বেশ ভালো লেগেছে। যাইহোক, কোর্সের নিয়ম অনুসারেই এসাইনমেন্ট জমা দিতে হয়। যেখানে অর্ধেক কোড লেখাই থাকে। ঘটনা সেটা না, ঘটনা হলো এসব লেকচার দেখে একটু একটু ধারনা পেলাম যে আসলেই এই জিনিসগুলো কিভাবে কাজ

পাইথন ৩ এর হাতেখড়ি – ভিডিও কোর্স

যারা প্রোগ্রামিং এ নতুন কিংবা পাইথন দিয়ে প্রোগ্রামিং শুরু করতে চান তাদের জন্য এই কোর্স। এখান ধারাবাহিকভাবে পাইথনের বেসিক গঠন এবং মৌলিক বিষয় নিয়ে আলোচনা করার চেষ্টা করেছি। মোট ১০ টি ভিডিওতে সময়ঃ ১২০ মিনিট। প্লে-লিস্ট পাওয়া যাবে এখানে https://goo.gl/j655ru আমার পূর্বের একটা কোর্সের কিছু কোড অনুশীলন আছে যেটা পাওয়া যাবে https://github.com/prodhan/python-book-practical/ এখানে এছাড়া আলাদা

শিক্ষার্থীর জন্য GitHub Student Developer Pack যেভাবে আবেদন করবেন

সবাই কেমন আছেন? আজকের লেখাটা শুধুমাত্র ছাত্রদের জন্য। ও হ্যাঁ, ছাত্রীরাও পড়তে পারেন 😛 স্কুল লাইফে তেমন কোন স্কলারশিপ না পেলেও ssc এর পর যখন ডিপ্লোমায় ভর্তি হলাম তখন থেকেই স্কলারশিপ জীবন শুরু। ফ্রি তে ডিপ্লোমা করলাম। এখন ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিতে ফুল ফ্রি স্কলারশিপ নিয়ে পড়াশোনা করছি। ফ্রি নেওয়ার নেশাটা সেখান থেকেই। ঢাকা শহরে বাসে যেমন

পায়রা বাল্ক এসএমএস (৫ পয়সা/এসএমএস) সিস্টেম এর বিস্তারিত

সবাইকে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়ে শুরু করছি। বেশ কিছুদিন হল বাল্ক এসএমএস নিয়ে একটু চিন্তা ভাবনা করছিলাম।  আমার কিছু প্রোজেক্টের জন্য প্রচুর পরিমাণ বাল্ক এসএমএস এর দরকার ছিল। অ্যাপ্লিকেশন থেকে নোটিফিকেশন এবং কনফার্মেশন ম্যাসেজ পাঠানোর জন্য মূলত বাল্ক এসএমএস ব্যবহার   করি। বেশকিছু প্রোভাইডারের সাথে যোগাযোগ করলাম এবং কিছু ব্যবহার করলাম। যেটার খরচ ছিল অনেক বেশি। নোটিফিকেশন

Google Drive এর আরও কিছু ব্যবহার – হয়তো অনেকেই জানি না

আমরা যারা ক্লাউড ড্রাইভ ব্যবহার করি তাদের প্রায় বেশিরভাগই গুগল ড্রাইভ ব্যবহার করি। অনেকেই শুধু ফাইল রাখার কাজেই ব্যবহার করে থাকি। অথচ এর মধ্যে যে আরও কত কি আছে সেটা হয়তো খেয়ালই করিনি। আমিও করি নি 😛 তবে এটার মধ্যে Google Sheets, Google Docs, Google Slides, Google Forms টুকটাক অনেকেই ব্যবহার করেছি। আমি আজ এগুলোর

বর্তমান সময়ে কম্পিউটারের যে বেসিক জিনিসগুলো না জানলেই নয়

কম্পিউটারের হাতেখড়ি অনেক ছোট থেকেই। যখন আমি ক্লাস ৫ এ পড়তাম তখন আমার এক বন্ধুর বাবার কম্পিউটার ছিলো। আমরা নিয়মিত গেমস খেলতাম। বিশেষকরে জিটিএ ভাইস সিটি। তেমন কিছুই পারতাম না তখন। কেবল কম্পিউটার চালু করা এবং গেম খেলে আবার বন্ধ করা। ও হ্যাঁ, তখন চালাইতাম উইন্ডোজ এক্সপি। যাইহোক, টুকটাক ফাইল কপি করা, সিডি রিড/রাইট করা

একাডেমিক বইই কি একমাত্র শিক্ষা?

ঘটনা ১ঃ আমার বাড়ি মফস্বলে। ছোট ২ বোন এবার ৬ষ্ঠ শ্রেণিতে উত্তীর্ণ হয়েছে। দুজনই সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ে অধ্যায়নের সুযোগ পেয়েছে। যাইহোক ক্লাস শুরু হবে আরও কিছুদিন পর। তাই ভাবলাম তাদের জন্য কিছু বই কিনে দেই। যেই ভাবা সেই কাজ। গেলাম লাইব্রেরীতে খুজলাম ইংরেজি ভোকাবুলারি বই। কিন্ত সারা বন্দর খুজেও একটা ইংরেজি ভোকাবুলারি বই খুঁজে পেলাম না।

কেন আইডিয়া পাই না?

কোন আইডিয়া পেতে হলে ভাবতে হবে। যেমনটা আমরা ফেসবুক নিয়ে ভাবি, নতুন কোন ইস্যু পেলে (যেমন বর্তমানে এভ্রিল নিয়ে চলছে) সেটা কিভাবে উপস্থাপন করা যায় সেটা নিয়ে ভাবি। তাই আমাদের মাথায় এসব নিয়ে অনেক আইডিয়া আসে। আপেল গাছ তলায় বসে নিউটনের মাথায় আপেল পড়তে পারে, তা থেকে যুগান্তকারী আবিষ্কার হতেই পারে। তাই বলে মাথায় বেল